PAGE LIKE COVER 44

ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট নিয়ে আপনি নিজেই অ্যাড দিতে পারবেন 
অনেকের অ্যাড একাউন্ট ফ্ল্যাগ অথবা ডিসেবল অথবা পেপাল এবং মাস্টার কার্ড না থাকার কারণে ফেসবুকে অ্যাড দিতে পারেন না ! তারা চিন্তা করেন যদি আমার একটা অ্যাড একাউন্ট থাকতো তাহলে আমি নিজেই  অ্যাড দিতে পারতাম, হা আমরা আপনাদের এই সকল কথা মাথায় রেখেই নিয়ে আসলাম অ্যাড একাউন্ট সুবিধা যাতে আপনার কোনো পেপাল বা মাস্টার কার্ড লাগবে না শুধু প্রিপেইড ব্যালেন্স দিয়ে আপনি অ্যাড দিতে পারবেন খুব সহজেই।

- FACEBOOK ADS VIDEO -

ফেসবুক পেজ প্রমোট করুন নিম্ন লিখিত প্যাকেজে

FACEBOOK LIKE

TK560.00

  • Advertise : 7 Days
  • Daily Budget: 3 RM
  • Like : 1000-15000
  • Service Charge Free
  • 100% Real Like
ORDER NOW

FACEBOOK LIKE

TK1100.00

  • Advertise : 14 Days
  • Daily Budget: 3 RM
  • Like : 2000-30000
  • Service Charge Free
  • 100% Real Like
ORDER NOW

FACEBOOK LIKE

TK2200.00

  • Advertise : 28 Days
  • Daily Budget: 3 RM
  • Like : 3000-50000
  • Service Charge Free
  • 100% Real Like
ORDER NOW

FACEBOOK POST BOST

TK560.00

  • Advertise : 7 Days
  • Daily Budget: 3 RM
  • Reach 3500-15000
  • Service Charge Free
  • 100% Real Reach
ORDER NOW

আমাদের ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট হচ্ছে মালয়েশিয়ান কারেন্সি অ্যাড একাউন্ট, এই অ্যাড একাউন্টে কোনো পেপাল বা কার্ড অ্যাড করা থাকবে না শুধু প্রিপেইড সিস্টেমে RM (RM হচ্ছে মালয়েশিয়ান টাকা) লোড করা যাবে যেটা আমরা করে দেবো, আমাদের প্রিপেইড অ্যাড একাউন্ট নেওয়ার জন্য আপনাকে 200 টাকা এককালীন এককাউন্ট ফী দিতে হবে এবং সাথে 21RM ব্যালেন্স নিতে হবে যার মূল্য ৫৬০ টাকা  , এরপর আপনি যতো ব্যালেন্স নিতে চান সেই পরিমান টাকা পে করতে হবে অথাৎ RM3=80 টাকা এখন RM3 আপনি একদিন অ্যাড দিতে পারবেন।এখন আপনার বাজেট হিসাব করে আমাদের কাছ থেকে ব্যালেন্স কিনতে পারবেন, অ্যাড একাউন্ট নিতে GET ADS ACCOUNT এ ক্লিক করুন এবং ব্যালেন্স কিনতে BUY BALANCE এ ক্লিক করুন,   একাউন্ট সম্পর্কে আরও জানতে ভিডিওটি দেখুন

 

FAQS

Google এ RM এর রেট কম আপনাদের বেশি কেন ?

Google আন্তর্জাতিক একটা রেট দেখায় Google অন্য কোনো খরচ হিসাব করে না, RM বাংলাদেশ থেকে কেনা অনেক কঠিন বেপার ডলার এর মতো না যে কোনো সময় পাওয়া যাবে, RM কিনতে হলে বিভিন্ন মাধ্যম ব্যাবহার করতে হয়, সেই মাধ্যম গুলোর খরচ আছে , আমাদের অফিস খরচ , গেটওয়ে খরচ স্টাফ খরচ সোহ আরও অনেক খরচ অন্তর্ভুক্ত করতে হয়, যেটা গুগল দেখে না, আমি যদি গুগল এর দামে RM সেল করি তাহলে আমাদের বাড়তি খরচ গুলো কে দেবে, যে কারণে গুগল রেট এর সাথে তুলনা করে লাভ নেই. আমাদের নির্ধারিত রেটে নিতে হবে

আমাদের এখানে অ্যাড দেওয়ার শর্ত সমূহ

১. আপনার পেজ প্রমোট বা পোস্ট বোস্ট এর কারণে যদি আমাদের ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট ফ্ল্যাগ হয়ে যায় তাহলে আপনার পেমেন্টকৃত টাকা রিটার্ন করবো না। যদি রাজি থাকেন তাহলে অ্যাড রান করবো।
২. যদি অন্য জনের পেজ প্রমোট বা পোস্ট বোস্ট এর কারণে একাউন্ট ফ্ল্যাগ করে তাহলে আপনার অ্যাড কোনো প্রকার চার্জ ছাড়াই আমরা নতুন একাউন্টে অ্যাড ট্র্যান্সফার করে দেবো।
৩. টাকা রিটার্ন না দেওয়ার কারণ হলো আমাদের অ্যাড একউন্টে ফ্ল্যাগ হলে যে ব্যালেন্স থাকে সেটা ফেসবুক আমাদের রিটার্ন দেয় না।
৪. আপনার অ্যাড এর কারণে আমাদের অ্যাড একাউন্ট ফ্ল্যাগ করেছে কিনা সেটা চাইলে আমরা প্রমান দেখিয়ে দেবো।
৫. আপনার অ্যাড প্রিভিউ থেকে শুরু করে অ্যাড স্পেন্ড হওয়ার আগে এবং পরে পর্যন্ত ফ্ল্যাগ বলে গণ্য করা হবে
সুতরাং ওপরের দেওয়ার শর্ত গুলো মেনে আমাদের কন্ফার্ম করুন। ..

ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট যে কারণে ফ্ল্যাগ হয় ! জানতে ক্লিক করুন

ফেসবুক অ্যাড অ্যাকাউন্ট ফ্ল্যাগ হলে কে দায়ি ?

আমরা যেহেতু প্রি-পেইড অ্যাড অ্যাকাউন্ট প্রভাইড করে থাকি, সেহেতু ব্যালেন্সটা ওই অ্যাকাউন্টে থাকে। আর ওই অ্যাড অ্যাকাউন্ট ফ্ল্যাগ করলে সেই ব্যালেন্স সহ ফ্ল্যাগ হয়। যা ৯০% ক্ষেত্রে ঠিক হয় না, মানে ফেসবুক ফ্ল্যাগ করা অ্যাকাউন্ট আন-ফ্ল্যাগ করে না। তো আপনি যখন প্রি-পেইড অ্যাড অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করবেন বা নিতে চাইবেন, অবশ্যই মনে রাখবেন ওই ফ্ল্যাগ হওয়া অ্যাড অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্সের দায়ভার আপনাকে নিতে হবে। এতে আমরা দায়ী থাকবো না। আর সামান্য কারণে যদি একউন্ট ফ্ল্যাগ করে যদি আপিল করেন তাহলে অনেক সময় ব্যাক করে দেবে ফেসবুক  আপিল করুন এখানে 

অ্যাড একাউন্ট নেওয়ার শর্ত সমূহ

১. অ্যাড একাউন্ট দেওয়ার পর যদি একাউন্ট ফ্ল্যাগ অথবা ভেরিফাই চাই সেটার দায়ভার আপনাকে নিতে হবে, একাউন্ট দেওয়ার আগে যদি কোনো সমস্যা হয় সেটা আমাদের দায়িত্ব
২. এমন হতে পারে ব্যালেন্স অ্যাড করার পর একাউন্ট ফ্ল্যাগ অথবা ভেরিফাই চাইতে পারে সেটার দায়ভার আপনাকে নিতে হবে.
৩.কোনো কারণে অ্যাড একাউন্ট খুঁজে না পেলে আপনি সাথে সাথে আমাদের কে জানাবেন সাপোর্ট অথবা লাইভ চ্যাট এ, যদি ৫ থেকে ৭ দিনের বেশি হয়ে যায় তাহলে আমাদের কিছুই করার থাকবে না, অবশ্যই অ্যাড একাউন্ট এর নাম ও আইডি নাম্বার বলতে হবে, নাম ও আইডি নাম্বার না বলতে পারলে কোনো কাজ হবে না.
৪. অ্যাড একাউন্ট ভেরিফাই কি : একাউন্ট ভেরিফাই হচ্ছে আপনি একাউন্ট এর প্রকৃত মালিক কিনা সেটা যাচাই করার জন্য একটা ফর্ম দিবে সেটা পূরণ করে ফেসবুকে দিতে হবে এরপর সব ঠিক থাকলে একাউন্ট রিটার্ন দিবে, ভেরিফাই এখানে করতে হবে

ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট এর দাম কতো ?

ফেসবুক প্রিপেইড অ্যাড একাউন্ট ফ্রীতে নিতে হলে আপনাকে VIP এডভাইজার হতে হবে অর্থাৎ প্রতিদিন ৫০-১০০ RM বেবহার করতে হবে,আর নরমাল ভাবে নিতে হলে ২০০ টাকা অ্যাড একাউন্ট ফী এবং ২১ RM ব্যালেন্স নিতে হবে , RM3 এ আপনি একদিন অ্যাড দিতে পারবেন, আর ২১ RM এ আপনি ৭ দিন অ্যাড দিতে পারবেন , আমরা আমাদের টোটাল চার্জ সহ RM3=80 টাকা  নেই, এখন আপনি যত ব্যালেন্স নিতে চান হিসাব করে আমাদের থেকে ব্যালেন্স নিতে পারবেন,  আরও  জানতে কল করুন অথবা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখুন। যা যা সুবিধা পাবেন: মাস্টার কার্ড এবং পেপাল একাউন্ট ছাড়াই আনলিমিটেড অ্যাড দেওয়ার সুবিধা, আনলিমিটেড Facebook অ্যাড পোস্ট করতে পারবেন, এডিট করা সহ, কারা আপনার বিজ্ঞাপন দেখলো,কতজন আপনার বিজ্ঞাপন দেখলো তা সরাসরি দেখার সুবিধা, বিজ্ঞাপন শেষে আপনার বিজ্ঞাপনের রিপোর্ট দেখুন, টার্গেট কাস্টমারকে বিজ্ঞাপন দেখানোর সুবিধা, লোকেশন অনুসারে বিজ্ঞাপন দেওয়ার সুবিধা, বয়স,লিঙ্গ,ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে বিজ্ঞাপন দেখানোর সুবিধা আরো অনেক সুবিধা পাবেন, এক কোথায় আপনি আপনার নিজের মতো করে অ্যাড দিতে পারবেন, এই অ্যাড একাউন্ট চালাতে আপনাকে কোনো পেপাল অথবা কার্ড এর প্রয়োজন হবে না.

যেভাবে আপনি আমাদের অর্ডার করবেন বা সার্ভিস নিবেন !

আমরা ২ ভাবে আমাদের সার্ভিস প্রদান করে থাকি। আপনি চাইলে আমাদের দ্বারা আপনার পেজ প্রমোট বা পোস্ট বুস্ট করাতে পারেন বা আপনি নিজেও করতে পারবেন। আমরা প্রি-পেইড এড অ্যাকাউন্ট প্রদান করে থাকি, যার মাধ্যমে আপনি নিজেই এড দিতে পারবেন। কোন প্রকার ভিসা বা মাস্টারকার্ডের প্রয়োজন নেই। আমরা মালয়েশিয়ান কারেন্সির (MYR বা RM) মাধ্যমে এড দিয়ে থাকি। আপনার প্রয়োজন মতো আমাদের মাধ্যমে আপনি আপনার এড অ্যাকাউন্টে ব্যালেন্স রিচার্জ করতে পারবেন। আমাদের মাধ্যমে পেজ প্রমোট বা পোস্ট বুস্ট করাতে চাইলে অবশ্যয় আমাদের রুলস মেনে দিতে হবে

আমাদের  অর্ডার দুই ভাবে করতে পারেন (১) আমাদের পেকেজের নিচে ORDER NOW বাটনে ক্লিক করে আপনার অর্ডার সম্পূর্ণ করুন এরপর আপনার পেজ থেকে আমাদের এই ফেসবুক আইডিতে (FB ID) এডিটর বানাতে হব, (২) আমাদের হেল্প লাইনে কল করে: কল করার পূর্বে আপনার কাঙ্খিত পেকেজের টাকা পেমেন্ট করতে হবে আমাদের বিকাশ নাম্বারে এরপর আপনার পেজ এর এডমিন অথবা এডিটর করতে হবে আমাদের তারপর আমরা আপনার পেজ প্রমোট করে দেবো, বিকাশ পার্সোনাল নাম্বার : 01839770221 (পেমেন্ট করার পর যে নাম্বার থেকে বিকাশ করা হয়েছে ওই নাম্বার আমাদেরকে বলতে হবে)

সর্বশেষে পেমেন্ট করার পর আমাদেরকে ফেসবুক অথবা লাইভ চ্যাটে যোগাযোগ করতে হবে

প্রতিদিন কতো লাইক আসতে পারে প্রমোট করলে ?

প্রতিদিন কতো লাইক আসতে পারে প্রমোট করলে বা কত জন মানুষ সেটা দেখবে? আসলে লাইক টা আসে হচ্ছে পেজের ক্যাটাগরির ওপর যেমন একটা খেলার পেজ বিনোদন পেজ কোনো সুপার ষ্টার এর নামে পেজ এই ধরণের পেজ গুলো ১ দিনে ১৫০০ এর ওপরে লাইক আসে আর যদি পেজ নিজের নামে বা মানুষ চেনে না এইরকম টাইপের পেজ হয় তাহলে লাইক কম আসে তারপরও বলা যায় না হয়তো লাইক বেশীও আসতে পারে ,মোট কথা পেজ যত ভালো হবে এবং পেজ যদি মানুষ পছন্দ করে তাহলে লাইক পাওয়া যাবে অনেক, আর যদি পেজ মানুষের কাছে ভালো না লাগে তাহলে কিন্তু মানুষ সেই পেজে লাইক দেবে না, আর প্রমোট মানে হচ্ছে আপনার ফেসবুক পেজ আমরা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেব সবার প্রোফাইলে স্পন্সার অ্যাড হিসাবে যা সবাই দেখবে এবং লাইক দেবে সুতরাং লাইক নির্ভর করে পেজের ওপর ! তবে পেজে প্রতিদিন লাইক আসবে৫০-১০০০ এর ওপরে এবং প্রতিনদিন দেখবে ৫০০-২০০০ লোক।

ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট যে কারণে ফ্ল্যাগ হয়

ফেসবুকে ব্যবসায় প্রচারের জন্য একটি বিশেষ সার্ভিস হল ফেসবুক অ্যাড। ফেসবুক যেমন দিনে দিনে সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে, ঠিক তেমনি ব্যবসায়ি বা অনলাইন মার্কেটারদের কাছেও ফেসবুক অ্যাড জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তার কিছু বিশেষ কারণও রয়েছে। একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে ফেসবুক অ্যাড। ফেসবুক অ্যাড দিয়ে যে কোন দেশের যে কোন বয়সের এবং পেশার মানুষকে টার্গেট করে বিজ্ঞাপন দেয়া যায়। তবে যে কোন পণ্য বিক্রয়ের জন্য ইচ্ছে মত অ্যাড তৈরি করলে ফেসবুক তা গ্রহন করে না। অ্যাড তৈরি করার পূর্বে অবশ্যই কিছু বিষয় মেনে অ্যাড তৈরি করতে হয়। তানা হলে ফেসবুক সেই অ্যাড এর অনুমোদন দেয় না। প্রায়ই দেখা যায় অনেকের অ্যাড অনুমোদন পায় না। অ্যাড তৈরি করার আগে অ্যাড গ্রহন না করার কারণ গুলো অবশ্যই জানা প্রয়োজন । ফেসবুক প্রত্যেকটি অ্যাড রিভিউ করার সময় খুব ভালো ভাবে দেখে যে ফেসবুকের অ্যাড পলিসিগুলো মেনে অ্যাড দেয়া হয়েছে কি না। ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট যে কারণে ফ্ল্যাগ হয় ! জানতে ক্লিক করুন

Pre-Sale Questions

যারা ফেসবুকে আগে কখনও বিজ্ঞাপন দেননি তাদের প্রথম প্রশ্নই হয় এমন। বিজ্ঞাপন দিতে চাই, কিন্তু কিভাবে কি করতে হবে? প্রথম এ্যাডের ক্ষেত্রে তাদের একটু বেশি সহায়তার প্রয়োজন হয়। আমাদের চেষ্টা থাকে তাদের সর্বোচ্চ সহায়তা করার। অন্যান্য মিডিয়া যেমন পত্রিকা, টিভি বা রেডিও থেকে ফেসবুকে এ্যাডের ধরন খানিকটা ভিন্ন। নিচে ধাপে ধাপে কিছু প্রশ্নের উত্তর দেবার চেষ্টা করা হয়েছে।
১. ফেসবুক ফ্যানপেজের ফ্যান বাড়াতে চান? কোন নির্দিষ্ট পোস্টের প্রচার করতে চান? নাকি ওয়েবসাইটের ভিজিটর বাড়াতে চান অথবা কোন ভিডিও প্রচারণা চালাতে চান? মানে ফেসবুক এ্যাডের মাধ্যমে আপনি কি প্রচার করতে চান তা প্রথমেই নির্ধারণ করুন।

২. আমাদের দেয়া নির্দিষ্ট একটি ই-মেইল কে এডিটর হিসেবে সেট করুন। এডিটর সেট করার পদ্ধতি পরবর্তী প্রশ্নের সাথে দেয়া আছে।

৩. কত টাকার এ্যাড দিতে চান এবং তা কত দিন পর্যন্ত চালাতে চান তা নির্ধারণ করুন। এরপর বিকাশের মাধ্যমে, অনলাইন এর মাধ্যমে অথবা সরাসরি আমাদের সাথে যোগাযোগ করে টাকা পরিশোধ করুন। টাকা পাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনার এ্যাডটি সাবমিট করা হবে।

বিকাশের মাধ্যমে অথবা সরাসরি পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারেন। বিকাশের মাধ্যমে পেমেন্টের জন্য অবশ্যয় নির্ধারিত প্রতি ৫৬০ টাকায় ১০ টাকা চার্জ দিতে হবে। এছাড়া বড় অংকের টাকা ব্যাংক এ্যাকাউন্টের মাধ্যমেও পাঠাতে পারেন। গেটওয়ের মাধ্যমে পেমেন্ট করলে কোনো ফী দিতে হবে না।

সর্বনিম্ন ৫৬০ টাকা দিয়ে শুরু করা যাবে যার মেয়াদ থাকবে ৭ দিন । যদি আপনি এর থেকেই বেশি বাজেট দিতে চান সেটাও দিতে পারবেন, আপনার অ্যাড এর বাজেট যদি বেশী হয় তাহলে বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে। সেই জন্য আলাদা সুযোগ থাকবে

সঠিক সংখ্যা আসলে কেউ দিতে পারে না। কারণ একটি এ্যাড চালুর পর তা কত মানুষের কাছে যাবে অথবা কতগুলো লাইক পাবে তা অনেকগুলো বিষয়ের উপর নির্ভর করে। আমাদের চেষ্টা থাকে যেন আপনি সর্বোচ্চ ফলাফল পেতে পারেন। তবে মোটের উপর একটি ধারনা পাবার জন্য নিচের পোর্টফলিও থেকে সর্বশেষ কয়েকটি এ্যাডের ফলাফল দেখলেই আশা করি বুঝতে পারবেন। সাধারনত পোস্ট রিচ -এর ক্ষেত্রে প্রতি ৫৬০ টাকায় ১৫০০০–৩০০০০ অথবা তারও বেশি ফেসবুক ব্যবহারকারীর কাছে পৌছানো যায়। এবং পেজ লাইক -এর ক্ষেত্রে প্রতি ৫৬০ টাকায় প্রায় ১০০০-৭০০০ পর্যন্ত অথবা তারও বেশি লাইক পাওয়া যায়।
আরেকটি বিষয় হলো টার্গেট নির্দিষ্ট করে দেয়ার উপর ফেসবুক এ্যাডের খরচ অনেকটা নির্ভর করে। যেমন আপনি যদি শুধু গুলশান এলাকার ৩০-৫৫ বছর বয়সী আইফোন-৭ মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী চান তবে স্বাভাবিকভাবে সেটির ‘Per Post Engagement’ এবং ‘Per Like’ রেট বেশি হবে। এখন আপনার ক্লায়েন্ট যদি নির্দিষ্ট ঐ এলাকার ঐ শ্রেণীরই হয়ে থাকে তবে সর্বোচ্চ ফলাফলের জন্য এই সেটআপের কোন বিকল্প নেই। এ ধরনের টার্গেট এ্যাডের সুবিধা অন্য কোন প্রচলিত মাধ্যমে পাওয়া সম্ভব না।

আপনি চাইলে আমাদের অফিস এসেও অ্যাড দিতে পারেন । তবে কেউ সরাসরি এসে এ্যাড দিতে চাইলে অথবা কথা বলতে চাইলে ফোন করে অথবা আমাদের যোগাযোগ ঠিকানায় চলে আসতে পারেন।

বিজ্ঞাপন শুরু হওয়ার পর স্বাভাবিকভাবেই পেজের রিচ বা লাইক বেড়ে যাবে এবং সেটার নোটিশ প্রতিনিয়ত আপনার নোটিফিকেশন ট্যাবে পাবেন। এছাড়া ফ্যান পেজের উপরের দিক থেকে ‘Insights’ এ ক্লিক করে বিস্তারিত জানতে পারবেন। এছাড়া প্রয়োজনে প্রতিনিয়ত আমাদের বিজনেস এ্যাকাউন্ট থেকে স্ক্রিনশন রিপোর্ট দিয়ে থাকি।

Technical Questions

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আসলে বিজ্ঞাপনের জন্য কোন প্যাকেজ অফার করেনা। যারা নিজেদের মত করে প্যাকেজ তৈরি করেছে এটা একান্তই তাদের নিজস্ব ব্যাপার। এরসাথে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কোন অফারের মিল নেই। তবে শুধুমাত্র ক্লায়েন্টদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে আমরাও একটি তালিকা তৈরি করেছি। ✔ ৭ দিন = ৫৬০ টাকা ✔ ১৪ দিন = ১১০০ টাকা ✔২৮ দিন = ২২০০টাকা

আগেই বলেছি টিভি, রেডিও অথবা পত্রিকার বিজ্ঞাপন থেকে ফেসবুকে বিজ্ঞাপনের ধরন সম্পূর্ণ আলাদা। কোন এ্যাড সফলভাবে চালু হওয়ার পরও আপনি সেটি দেখতে পাবেন কিনা তা নির্ভর করছে যেভাবে এ্যাডটি সেট করা হয়েছে সেই নির্ধারিত ক্যাটাগরিতে আপনি আছেন কিনা। যেমন আপনার বয়স ফেসবুকে যদি দেয়া থাকে ৪০ বছর আর লোকেশন চট্টগ্রাম এবার আপনি এ্যাড সেট করার সময় উল্লেখ করলেন যাদের বয়স ১৩ থেকে ৩৫ এবং লোকেশন ঢাকা। খুব স্বাভাবিকভাবেই আপনি এই এ্যাডটি দেখতে পাবেন না। আবার সব ঠিক থাকার পরও বাজেট যদি কম হয় তবে এ্যাডটি আপনার ফেসবুক ফিডে নাও আসতে পারে। কারণ ইতেমধ্যেই হয়ত এ্যাডটি একই ক্যাটাগরির অন্য ইউজারের কাছে পৌছে গেছে।

যদি আমাদের শর্তের বাহিরে হয় তাহলে টাকা ফেরত পাবেন অন্যথায় পাবেন না.
১. আপনার পেজ প্রমোট বা পোস্ট বোস্ট এর কারণে যদি আমাদের ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট ফ্ল্যাগ হয়ে যায় তাহলে আপনার পেমেন্টকৃত টাকা রিটার্ন করবো না এবং এটার বদলে অন্যটা দেওয়া যাবে না, পুনরায় পেমেন্ট করে নতুন অ্যাড রান করতে হবে। যদি রাজি থাকেন তাহলে অ্যাড রান করবো।
২. যদি অন্য জনের পেজ প্রমোট বা পোস্ট বোস্ট এর কারণে একাউন্ট ফ্ল্যাগ করে তাহলে আপনার অ্যাড কোনো প্রকার চার্জ ছাড়াই আমরা নতুন একাউন্টে অ্যাড ট্রানফার করে দেবো।
৩. টাকা রিটার্ন না দেওয়ার কারণ হলো আমাদের অ্যাড একউন্টে ফ্ল্যাগ হলে যে ব্যালেন্স থাকে সেটা ফেসবুক আমাদের রিটার্ন দেয় না।
৪. আপনার অ্যাড এর কারণে আমাদের অ্যাড একাউন্ট ফ্ল্যাগ করেছে কিনা সেটা চাইলে আমরা প্রমান দেখিয়ে দেবো।
৫. অ্যাড একাউন্ট এর ফ্ল্যাগ হওয়ার সময় সীমা অ্যাড দেওয়া থেকে শুরু করে একটিভ হাওয়ার পর পর্যন্ত এমন কি স্পেন্ড শুরু হলেও ফ্ল্যাগ করতে পারে
৬. অ্যাড চলাকালীন অবস্থায় এডিটর বা অ্যাডমিন থেকে রিমুভ করা যাবে না

এ ধরনের কোন নিশ্চয়তা নেই। ফেসবুকে যে পদ্ধতিতে এ্যাড পরিচালিত হয় সেই নিয়ম অনুযায়ী একই বাজেটের মধ্যে যে সময়ই নির্ধারণ করা হোক না কেন তা নির্দিষ্ট ঐ সংখ্যার ইউজারের কাছে পৌছে যায়। তবে একটানা অ্যাড একটিভ থাকলে লাইক রিচ একটু বেশি হয়

ফেসবুক এ্যাড পরিচালনার জন্য একজনকে আপনার পেজের এডিটর বানাতে হয়। পেজের এডিটর বানাতে হলে আগে আমাদের ফেইসবুক ID তে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দিতে হবে এরপর আমরা ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করলে বাকি স্টেপ গুলো পূরণ করুন,এজন্য পেজের উপর দিক থেকে ‘Settings’ এ ক্লিক করুন। এরপর বাম দিক থেকে ‘Page Role’ এ ক্লিক করলে একটি বক্স আসবে যেখানে আমাদের ই-মেইল আড্রেস অথবা আমাদের ID এর নাম দিতে হবে এবং নিচের ড্রপডাউন মেনু থেকে ‘Editor’ নির্বাচন করে ‘Save’ বাটনে ক্লিক করুন। এরপর আপনার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড দিলেই হয়ে যাবে।

আমরা ডলারে প্রমোট বা বোস্ট প্রোভাইড করি না, আমরা প্রিপেইড অ্যাড একাউন্ট মালয়েশিয়ান কারেন্সি (RM) দিয়ে অ্যাড দিয়ে থাকি সুতরাং ডলার এর সাথে আমাদের কোনো হিসাব নাই.
প্রতিদিন RM3 দিয়ে ৭ দিনে RM21 দিয়ে প্রমোট দিয়ে থাকি ৫৬০ টাকার পেকেজে , যদি আপনি বেশি RM বেবহার করতে চান তাহলে প্রতি RM3=80 টাকা করে পেমেন্ট করতে হবে, অর্থাৎ 6RM=160 tk , 9RM= 240 tk